25th-blog

মধুর উপকারিতা

স্বাদ এবং গুণে সমৃদ্ধ মধু আমাদের অনেকেরই প্রিয়। আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় মধুর চাহিদা ব্যাপক। স্বাস্থ্য সচেতনদেজন্য মধু অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ওজন নিয়ে যারা চিন্তিত তারা অনেকেই চা কিংবা অন্যান্য খাবারে সঙ্গে চিনির পরিবর্তে মধু পান করে থাকেন। কেবল ওজন হ্রাসের সহায়তা করা ছাড়াও মানব দেহে মধুর উপকারিতা প্রচুর। আসুন জেনে নেয়া যাক, মধুর অন্যান্য উপকারিতা সম্পর্কে। 

১। দেহে শক্তি যোগায়

মধু মানব দেহে তাপ এবপং শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। তাই তো মায়েরা ছোটবেলা থেকেই শিশুদের মধু খাইয়ে থাকেন। অনেক সময় আমাদের শারীরিক দুর্বলতা দেখা দিলে মধু আমাদের শক্তি প্রদান করে আমাদের দেহকে সুস্থ রাখে।

২। হজম শক্তি বৃদ্ধি

মধুতে উপস্থিত শর্করা পাকস্থলীকে সুস্থ এবং সচল রাখে। ফলে খাদ্য হজমে সুবিধা হয়। তাই প্রতিদিন ১/২ চামচ করে মধু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এছাড়াও মধু বমি বমি ভাব, বুক জ্বালাপোড়া এবং অরুচি দূর করে আপনাকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করবে।

৩। রক্তশূন্যতা দূর করে

মধুতে অবস্থিত লৌহ, কপার এবং ম্যাঙ্গানিজ রক্তে হিমোগ্লোবিন গঠনে সহায়তা করে। এর ফলে দেহে রক্তের ঘাটতি দূর হয়।

৪। ঘুম ভালো হয়

আমাদের অনেকেরই ঘুমের সমস্যা আছে। দেখা যায়, রাতে শুয়ে পরার পর আর ঘুম আসছে না। এভাবে অনেকেই নিদ্রাহীন রাত কাটিয়ে পার করে দিচ্ছেন দিনের পর দিন। এর প্রভাব পচে শরীরে। চোখের নিচে কালি পরে যাচ্ছে। দুর্বলতা দেখা দিচ্ছে। অবশেষে আপনারে ঘুমের ওষুধের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে। এই কষ্টকর পরিস্থিতিতে মধু হতে পারে আপনার সহায়ক। অনিদ্রা দূর করতে মধু অনেক উপকারী প্রমাণিত হয়েছে। প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস পানিতে দু চা-চামচ মধু দিয়ে খেলে আপনার ভাল ঘুম হবে। 

Source: eMediHealth

৫। ডায়রিয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ দূর করে

ডায়রিয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য রোগের সমাধান মেলে মধুতে। প্রতিদিন ভোরে ১ চামচ মধু খালি কিংবা গরম পানির সাথে মিশিয়ে পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। এছাড়াও ডায়রিয়া রোগের আক্রান্ত রোগীদের মধু মিশ্রিত পানি পান করলে দেহে পানিশূন্যতা দূর হবে।

৬। দৃষ্টিশক্তি প্রখর করে

দৃষ্টিশক্তি প্রখর করার জন্য গাজরের অবদান সম্পর্কে আমরা সকলেই জানি। তবে মধুও চোখের শক্তি বাঁড়াতে সাহায্য করে। তাইতো ছোটবেলা থেকে চোখের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করার জন্য অনেক মায়েরা তার সন্তানদের গাজরের রসের সাথে মধু মিশিয়ে খাইয়ে থাকে।

৭। দাঁত ও মুখগহ্বর কে সুস্থ রাখে

মধু মুখগহ্বরের নানা সমস্যার সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মধু দাঁতের ক্ষয়রোধ, পাথর জমাট রোধ করা সহ দাঁত পড়াতে বিলম্ব করতে বিদ্যমান সাহায্য করে। এছাড়াও মুখের ভেতরে মাড়িকে সুস্থ রাখে এবং মাড়ির প্রদাহ দূর করে। মধুতে বিদ্যমান ক্যালসিয়াম দাঁত এবং হাড় গঠনে সাহায্য করে।

Source: Treehugger

৮। ওজন কমাতে সহায়তা করে

ওজন কমাতে মধুর কার্যকারিতা অনেক। ওজন কমাতে আমরা অনেকেই চিনি খাওয়া কমিয়ে দেই। সে ক্ষেত্রে চিনির বিকল্প হিসেবে মধু বাছাই করে থাকি। মধুতে কোন চর্বি নেই। তাই ডায়েট করার জন্য এটি চিনির বিকল্প হিসেবে বেশ কার্যকরী। এছাড়াও ডায়াবেটিকস রোগীরাও চায়ে চিনির পরিবর্তে মধু ব্যবহার করতে পারে।

৯। সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

আমরা অনেকেই ঘরে বসে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে রূপচর্চা করে থাকি। সে প্রাকৃতিক উপাদানের মধ্যে মধুর কোন বিকল্প নেই। মুখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি কিংবা ত্বকের মসৃণতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্যাক তৈরিতে মধু বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও মধুতে অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট রয়েছে, যা আমাদের ত্বক সুস্থ এবং উজ্জ্বল রাখে। এবং ত্বকে ভাঁজ পড়া থেকে রোধ করে, ত্বকের তারুণ্য বজায় রাখে।

১০। ক্যান্সার রোধ করে

মধুতে উপস্থিত অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট দেহকে সুস্থ রেখে ক্যান্সার রোধে সাহায্য করে।

আপনার দেহ এবং ত্বককে সুস্থ রাখতে প্রতিদিন মধু পান করুন। খাঁটি মধু কিনতে ভিজিট করুন Shobuy-এ। 

Leave A Comment

You must be logged in to post a comment