36th-blog

ঘরে বসেই অনলাইনে আয় করবেন যেভাবে

ঘরে বসে আয় করতে চান? ঘরে বসেই অনলাইনে আয় করতে পারেন ফ্রিল্যান্সিং-এর মাধ্যমে। আপনার দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে হয়ে যেতে পারেন একজন ফ্রিল্যান্সার। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য বেশ পপুলার কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমন- ফাইভার, গুরু ডট কম, বিল্যান্সার, পিপল পার পাওয়ার, ফ্রিল্যান্সার ডট কম, আপওয়ার্ক ইত্যাদি। যেখানে আপনি আপনার প্রোফাইল ক্রিয়েট করে কাজ পেতে পারেন সহজেই।

আপনার দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা কোন বিষয়ে তার উপর ভিত্তি করে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। বর্তমানে আমরা একটি কঠিন সময় পার করছি। করোনা পরিস্থিতির কারণে গৃহবন্দী সময় কাটাচ্ছি। আবার আমাদের আশেপাশের অনেকেই চাকরীচ্যুত হয়ে ঘরে বসে আছেন। ঘরে বসে থেকে হতাশ সময় না কাটিয়ে চাইলেই ঘরে বসে আয় করতে পারেন আপনিও। তবে Freelancing কাজ শুরু করার আগে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে আপনি কোন বিষয়ে দক্ষ। আপনি কোন বিষয়ে কাজ করতে পছন্দ করেন।

কি কি বিষয়ে ফ্রিল্যান্সিং করা সম্ভব?

  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • কপি রাইটিং
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ওয়েব ডিজাইনার
  • গ্রাফিক্স বা লোগো ডিজাইন
  • ডাটা এন্ট্রি
  • ভিডিও এডিটিং এবং এনিমেশন মেকিং
  • প্রোগ্রামিং
  • ট্রান্সলেশন
  • প্রুফরিডিং এন্ড এডিটিং

আপনি যদি মনে করে থাকেন, ফ্রিল্যান্সিং করার মতো আপনার যথেষ্ট দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা নেই। তবে এ নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই। আমি বিশ্বাস করি বর্তমান যুগে কোন কাজ শেখাই অসম্ভব নয়। আমাদের হাতের নাগালে স্কিল ডেভেলপমেন্টের জন্য প্রচুর রিসোর্সেস রয়েছে। লকডাউনের এ মুহূর্তে নিজের পছন্দমতো দক্ষতা অর্জনের কাজে নেমে পরুন। অনলাইনে বেশ কিছু পেইড এবং আনপেইড কোর্স রয়েছে। সেই কোর্সে এনরোল হয়ে যেতে পারেন। এছাড়াও ইউটিউবে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল দেখে আপনি আপনার দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

দক্ষতা অর্জনের পর উল্লেখিত ওয়েবসাইটগুলোতে আপনার প্রোফাইল সাজাতে শুরু করে দিন। একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে প্রোফাইল না খুলে একাধিক ওয়েবসাইটে প্রোফাইল ক্রিয়েট করুন। আপনার প্রোফাইলটি সাজাতে পারেন আপনার কাজের বর্ণনা, কাজে দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা দিয়ে। আপনার প্রোফাইলটি বেশ আকর্ষণীয় হওয়া বাঞ্ছনীয়। কেননা ক্লাইন্ট আপনার প্রোফাইল দেখেই আপনাকে কাজ এসাইন করবে।

প্রথম দিকে হয়তো আপনি অনেক কাজ নাও পেতে পারেন। ছোটখাটো কাজ দিয়ে কাজ করা শুরু করতে পারেন। তবে এ নিয়ে হতাশ হলে চলবে না। ধীরে ধীরে আপনার অভিজ্ঞতার সাথে আপনার কাজের পরিধিও বৃদ্ধি পাবে। তবে আপনাকে ধৈর্য ধারণ করতে হবে। সহজে ভেঙ্গে পরলে চলবে না।

ধরুন আপনি কন্টেন্ট রাইটার হিসেবে কাজ করতে আগ্রহী। আপনি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন আপনার রাইটিং স্কিল বাড়ানোর মধ্য দিয়ে। আপনি নিজের একটা ব্লগ খুলতে পারেন। যেখানে আপনি প্রতি দিন ১টি করে কন্টেন্ট লিখতে পারেন। এভাবে আপনার লেখার চর্চাও বৃদ্ধি পাবে। আর আপনি আপনার ব্লগের লিংকটি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের প্রোফাইলেও আপডেট করতে পারবেন। এতে করে, ক্লাইন্টের আপনার স্কিল সম্পর্কে ধারণা হবে। আপনি ধীরে ধীরে কাজও পেতে থাকবেন। শুরুতে ছোটখাটো কাজ দিয়ে শুরু করলেও, অনলাইন মার্কেটপ্লেসে আপনার রেটিং ভালো হলে বড়সড় কাজ পাবেন সহজেই।

Leave A Comment

You must be logged in to post a comment